June 16, 2024, 2:30 am

নোটিশ:
সংবাদদাতা আবশ্যক
সংবাদ শিরোনাম:
ঘোড়াঘাটে অবৈধভাবে মাদ্রাসার অফিস সহকারী নিয়োগের পাঁয়তারা আদালতে মামলা। নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানগণকে সংবর্ধনা এবং বিভিন্ন প্রকল্পের নগদ অর্থ ও সাইকেল বিতরণ। চাঞ্চল্যকর ‘ব্রাজিল’ হত্যা মামলার মূল পরিকল্পনাকারীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১২, সিপিএসসি, বগুড়া। ঘোড়াঘাটে ভিজিএফ এর চাল বিতরণে অনিয়ম, বাধা দেওয়ায় ইউপি সদস্যকে মারপিট। র‌্যাব-১২, বগুড়া ও র‌্যাব-১, পোড়াবাড়ী এর যৌথ অভিযানে হ-ত্যা মামলার এজাহারনামীয় ০২ জন আসামী গ্রেফতার। হারানো টাকা ফেরত পেয়ে আনন্দে আত্মহারা মনিরুল। র‌্যাব-১২, সিপিএসসি, বগুড়া কর্তৃক অভিযানে হত্যা মামলার এজাহারনামীয় একজন আসামী গ্রেফতার। র‌্যাব-১২, সিপিএসসি, বগুড়া কর্তৃক অভিযানে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালিয়ে প্রানহানি মামলার একজন গ্রেফতার। ঘোড়াঘাটে স্মার্ট ভূমিসেবা সপ্তাহ উপলক্ষে জনসচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত। ঘোড়াঘাটে সেনাবাহিনীর লীজকৃত ১৫ একর জমির দখল হস্তান্তর।

দৈনিক আলো প্রতিদিন ডেস্ক: ইসরাইলের সাথে সব ধরনের বাণিজ্য বন্ধ করে দিয়েছে তুরস্ক। বৃহস্পতিবার মার্কিন প্রভাবশালী গণমাধ্যম ব্লুমবার্গ এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

ব্লুমবার্গের খবরে বলা হয়েছে, তুরস্কের দুই কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ইসরাইল ও তুরস্কের মাঝে আর কোনো পণ্যের আমদানি-রফতানি হচ্ছে না।

ইসরাইলি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইসরায়েল কাৎজ বৃহস্পতিবার এক এক্স বার্তায় অভিযোগ করে বলেন, বন্দর দিয়ে ইসরাইলি পণ্য আমদানি ও রফতানি বন্ধ করে দিয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান বাণিজ্যিক চুক্তি ভঙ্গ করছেন।

তিনি আরো বলেন, স্বৈরশাসকই এমন ব্যবহার করে থাকে। তুরস্কের মানুষ ও বাণিজ্য এবং আন্তর্জাতিক বাণিজ্য চুক্তিকে উপেক্ষা করেছেন তিনি।’

উল্লেখ্য, তুরস্ক বাণিজ্য বন্ধ করে দেয়ায় বিকল্প হিসেবে অন্য দেশ থেকে পণ্য আমদানি এবং স্থানীয়ভাবে পণ্য উৎপাদনের জন্য সরকারি প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশনা দিয়েছেন ইসরাইলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

সূত্র : আল-আরাবিয়া

ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে ঈদুল আজহা উপলক্ষে সরকারের দেওয়া বিশেষ বরাদ্দ ভিজিএফ এর চাল বিতরণে ব্যাপকে অনিয়ম ও কালোবাজারে চাল বিক্রি সহ অনিয়মে বাধা দেওয়ায় এক ইউপি সদস্যকে মারপিটের অভিযোগ উঠেছে।

গত মঙ্গলবার উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ৪টি ইউনিয়নের ২১ হাজার ৯৮৮ জন সুবিধাভোগীর মাঝে চাল বিতরণের উদ্বোধন হলে সরেজমিনে গিয়ে এসব অনিয়ম ও ৩ নং সিংড়া ইউপির ৭নং ওয়ার্ড সদস্য আতিয়ার রহমানকে মারপিটের অভিযোগ পাওয়া যায়।

সরজমিনে গিয়ে খোঁজ খবর নিয়ে দেখা গেছে, ৩ নং সিংড়া ইউনিয়নের চাল বিতরণে উদ্বোধনের প্রথম দিনে ৭, ৮, ৯ নং ওয়ার্ডে চাল বিতরণকালে ১০ কেজি চালের পরিবর্তে ৪’শ থেকে ৫’শ গ্রাম চাল কম দেওয়া হচ্ছে। চাল কম দেওয়ার বিষয়টি গণমাধ্যমকর্মীরা প্রমান করলে সাথে সাথেই ওজন পরিমাপের ডিজিটাল মিটার গুলো সংশোধন করেন। এছাড়া পরিষদের আশেপাশে পাইকারি ও খুচরা চাল ব্যবসায়ীরা ১টি স্লিপের চাল ৩শ থেকে ৩২০ টাকা দরে ক্রয় করছেন। চাল বিক্রির বিষয়ে সুবিধাভোগীদের সাথে কথা হলে তারা জানান, মোটা চাল বিক্রি করে চিকন চাল ক্রয় করতে এসব চাল বিক্রি করা হয়।

চাল বিতরণের অনিয়মের অভিযোগ পেয়ে উপজেলার ৩নং সিংড়া ইউনিয়ন পরিষদে গেলে আতিয়ার রহমান সহ কয়েকজন ইউপি সদস্য অভিযোগ করে জানান, ইউপি চেয়ারম্যান সাজ্জাত হোসেনের কিছু ব্যক্তিগত লোক সুবিধাভোগীদের স্লিপ দিয়ে নিজেরাই চাল উত্তোলন করছে। এতে ইউপি সদস্য আতিয়ার রহমান বাধা দিলে চাল উত্তোলনকারী আনিছুর রহমান ও তার সহযোগীরা ইউপি সদস্যকে কিল-ঘুষি মেরে ছিলা ফোলা জখম সহ শারীরিক ভাবে লাঞ্চিত করেন।

স্থানীয় একাধিক বাসিন্দা জানান, আমাদের নিকট থেকে বিভিন্ন সময় জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি জমা নেওয়া হলেও আমাদেরকে চালের স্লিপ দেওয়া হয় না। পরবর্তীতে খোঁজ নিতে গেলে চেয়ারম্যান মেম্বাররা জানায় তালিকায় যাদের নাম আছে শুধু তাঁরাই চাল পাবে। কিন্তু তালিকাতে আমাদের নাম আছে কি না তা জানা বা দেখার কোন সুযোগ নেই। শুধু চেয়ারম্যান মেম্বারদের নিজেদের লোকদেরকে স্লিপ দিয়ে চাল উত্তোলন করা হয়।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য আতিয়ার রহমানের সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমার এলাকার এক প্রতিবন্ধী ব্যক্তির নামের স্লিপ নিয়ে আনিছুর রহমান নামে একজন চাল উত্তোলন করতে আসায় আমি বাধা দিলে তিনি ও তার সহযোগীরা আমার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে গালিগালাজ ও আমাকে কিল-ঘুষি মেরে হাত ও মুখে ফোলা জখম সহ শারীরিক ভাবে লাঞ্চিত করেন। এছাড়া তাকে বাঁধা দেওয়ার আগেও আমি আমার ওয়ার্ডের এরকম ২৫/৩০ টি স্লিপ জব্দ করেছি।

এ বিষয়ে ৩নং সিংড়া ইউপি চেয়ারম্যান সাজ্জাত হোসেনের সাথে কথা হলে তিনি জানান, চাল উত্তোলনকে কেন্দ্র করে মারামারির বিষয়টি তাদের পারিবারিক দ্বন্দ্বের একটি অংশ। ভুক্তভোগীদের নামের তালিকা প্রদর্শনের বিষয়ে কথা হলে তিনি বলেন, তালিকা প্রদর্শনের বিষয়ে আমাদেরকে তেমন কোন নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। তবে তালিকা ইউএনও ও পিআইও অফিসে জমা আছে। অন্যদিকে চাল কম দেওয়ার বিষয়ে অস্বীকার করে বলেন, আমার ইউনিয়নে কাউকে ১০০ গ্রাম চালও কম দেওয়া হয়নি।

এ বিষয়ে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা (ইউএনও) রফিকুল ইসলাম বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কতৃক বিশেষ বরাদ্দকৃত চাল যেন ঘোড়াঘাট উপজেলার সবচেয়ে অসহায় ও হতদরিদ্র ব্যক্তিরা পায় তা নিশ্চিত করতে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারগণদের নিয়ে উপজেলাতে মিটিং করা হয়। মিটিং এ সর্বোচ্চ স্বচ্ছতা বজায় রেখে বিতরণের জন্য কঠোর ভাবে নিদর্শনা দেওয়া হয়েছে। নিদর্শনা অমান্য করলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে মর্মে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। স্বচ্ছতার সাথে চাল বিতরণ হচ্ছে, ছোট খাটো অভিযোগ আছে। অভিযোগ সতর্কতার সাথে দেখা হচ্ছে। অভিযোগ প্রমানিত হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

(মোহাম্মদ সুলতান কবির)

প্রেস রিলিজ: গত ১৫ মে ২০২৪ ইং তারিখ বগুড়া জেলার সদর থানাধীন মালগ্রাম শান্তিনগর এলাকার মোঃ আলী জিন্না (৫৪) বগুড়া সদর থানায় এই মর্মে অভিযোগ দায়ের করেন যে, তার ছেলে আলী হাসান (৩২) ও আসামী সবুজ তারা দুই বন্ধু। কিছুদিন পূর্বে তার আলী হাসান জেলে থাকায় তার বন্ধু সবুজ তার বউয়ের সাথে পরকিয়া প্রেমে লিপ্ত হয়। পরবর্তীতে তারা আপোষ মিমাংসা করে পুনরায় একত্রে চলাফেরা করে। এরই সূত্র ধরে গত ১৪/০৫/২৪ ইং তারিখ ভিকটিমকে কৌশলে তার বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয় এবং ধারালো চাকু দ্বারা আঘাত করে হত্যা করে। উক্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে বগুড়া সদর থানার মামলা নং-৪৫, তারিখ ১৫/০৫/২৪ ধারা-৩০২/৩৬৪ পেনাল কোড-১৮৬০ রুজু হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-১২, সিপিএসসি, বগুড়া গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে, রুজুকৃত মামলার আসামী গাজীপুর মেট্রোপলিটন এলাকায় অবস্থান করছে। এই গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ১১ জুন ২০২৪ ইং তারিখ অনুমান ২০৩০ ঘটিকায় র‌্যাব-১২, সিপিএসসি, বগুড়া ও র‌্যাব-১, সিপিএসসি, গাজিপুর পোড়াবাড়ীর যৌথ অভিযানে জিএমপি’র আওতাধীন কোনাবাড়ী থানাধীন কোনাবাড়ি ফ্লাইওভারের নীচে অভিযান পরিচালনা করে এজাহারনামীয় ৩নং আসামী মোঃ সম্রাট সওদাগর (২৩), পিতা- মৃত সিরাজ সওদাগর, সাং- শহরদিঘী, থানা ও জেলা- বগুড়া এবং ৪নং আসামী মোছাঃ লিপি বেগম (১৯), স্বামী- মোঃ সম্রাট সওদাগর, সাং- শহরদিঘী, থানা ও জেলা- বগুড়াদ্বয়কে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সদর থানা, বগুড়ায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রেস রিলিজ: গত ১৫ মে ২০৪ ইং তারিখ বগুড়া জেলার সদর থানাধীন মালগ্রাম শান্তিনগর এলাকার মোঃ আলী জিন্না (৫৪) বগুড়া সদর থানায় এই মর্মে অভিযোগ দায়ের করেন যে, তার ছেলে আলী হাসান (৩২) ও আসামী সবুজ তারা দুই বন্ধু। তার ছেলে জেলে থাকায় তার বন্ধু তার বউয়ের সাথে পরকিয়া প্রেমে লিপ্ত হয়। পরবর্তীতে তারা আপোষ মিমাংসা করে পুনরায় তারা একত্রে চলাফেরা করে। গত ১৪/০৫/২৪ ইং তারিখ ভিকটিমকে কৌশলে তার বাড়িতে নিয়ে যায় এবং ধারালো চাকু দ্বারা স্টে করে হত্যা করে। উক্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে বগুড়া সদর থানার মামলা নং-৪৫, তারিখ ১৫/০৫/২৪ ধারা-৩০২/৩৬৪ পেনাল কোড-১৮৬০ রুজু হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-১২, সিপিএসসি, বগুড়া গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে, রুজুকৃত মামলার আসামী বগুড়া সদর থানা এলাকায় অবস্থান করছে। এই গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ১০ জুন ২০২৪ ইং তারিখ অনুমান ১৭২০ ঘটিকায় বগুড়া সদর থানাধীন অবদা গেইট এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে মোছাঃ সিল্কী বেগম (৫২), স্বামী- মৃত সিরাজ সওদাগর, সাং-শহরদিঘী পশ্চিমপাড়া, থানা ও জেলা- বগুড়া’কে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সদর থানা, বগুড়ায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রেস রিলিজ: গত ০৫ মে ২০২৪ ইং তারিখ ভিকটিম মোঃ আব্দুস সালাম (৪৪), পিতা- মৃত আমজাদ হোসেন, সাং- শিহাড়ী, থানা- আদামদীঘি, জেলা- বগুড়া সকাল অনুমান ০৮০০ ঘটিকার সময় তার নশরতপুর বাজারে ক্রোকারিজ এর দোকানে যায়। দোকানের বকেয়া টাকা উঠানোর জন্য দোকানে তার ছেলেকে রেখে একই তারিখ ০৯৩০ ঘটিকার সময় তার ব্যবহৃত মোটর সাইকেল যোগে নশরতপুর বাজার হইতে কুন্দগ্রাম যাওয়ার পথে আদমদীঘি থানাধীন কুন্দগ্রাম ইউপিস্থ মটপুকুরিয়া ও নিমকুড়ি রাস্তায় নিমকুড়ি মোড়ে সকাল অনুমান ১০০০ ঘটিকায় পৌছা মাত্রই ইট ভর্তি ট্রাক্টর অজ্ঞাতনামা চালক বেপরোয়া গতিতে গাড়ী চালাইয়া ট্রাক্টর চাকা দ্বারা পৃষ্ট করে ট্রাক্টর চালক পালিয়ে যায়। যার প্রেক্ষিতে আদমদীঘি থানার মামলা নং-৬, তারিখ ০৫/০৫/২৪ ধারা-৯৮/১০৫ সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ রুজু হয়।

ঘটনার পরপরই র‌্যাব-১২, সিপিএসসি, বগুড়া হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার সহিত সার্বক্ষনিক সমন্বয় করতঃ ছায়াতদন্ত ও গোয়েন্দা তৎপরতা শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-১২, সিপিএসসি, বগুড়া গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে, রুজুকৃত ক্লুলেস মামলার তদন্তে প্রাপ্ত আসামী নওগাঁ সদর থানা এলাকায় অবস্থান করছে। এই গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অদ্য ১০ জুন ২০২৪ ইং তারিখ রাত্রি অনুমান ০১.০৫ ঘটিকায় নওগাঁ সদর থানাধীন আদমদূর্গাপুর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ড্রাইভার মোঃ রব্বানী (২৯), পিতা- মোঃ নূর ইসলাম, সাং- ছাতিয়ানগ্রাম, থানা- আদমদীঘি, জেলা- বগুড়া’কে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আদমদীঘি থানা, বগুড়ায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

দৈনিক আলো প্রতিদিন ডেস্ক: বগুড়ায় আবাসিক হোটেলে স্ত্রী-সন্তানকে গলা কেটে হত্যা করে লাশ বস্তাবন্দী করে কক্ষে রেখে পালানোর সময় এক সেনাসদস্যকে আটক করা হয়েছে। আজ রোববার বেলা ১১টার দিকে বগুড়া শহরের বনানী এলাকায় শুভেচ্ছা আবাসিক হোটেল থেকে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। আটক সেনাসদস্য আজিজুল হক (২৪) বগুড়ার ধুনট উপজেলার হেউটনগর গ্রামের হামিদুল হকের ছেলে। তিনি সেনাসদস্য হিসেবে চট্টগ্রাম সেনানিবাসে কর্মরত আছেন। তাঁর স্ত্রী আশামনি (২১) বগুড়া শহরের নারুলী তালপট্টি এলাকার আসাদুল ইসলামের মেয়ে। তাঁদের সন্তান ১১ মাস বয়সী আব্দুল্লাহেল রাফী।

জানা গেছে, শনিবার রাত ৯টার দিকে আজিজুল নিজেকে মিরাজ এবং তার স্ত্রীকে তমা এবং তাদের বাড়ি রংপুরের পীরগঞ্জ পরিচয় দিয়ে হোটেলের ৩০১ নম্বর কক্ষ ভাড়া নেন। রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আজিজুল হক রুমে ছেড়ে দেবে বলে ভাড়া পরিশোধ করতে চান। এ সময় হোটেলের ব্যবস্থাপক তাঁর স্ত্রী-সন্তান কোথায় জানতে চাইলে তিনি বলেন তারা সকালে চলে গেছে। এ সময় ব্যবস্থাপক কক্ষ দেখে বুঝে নেওয়ার কথা বললে আজিজুল হক স্ত্রী-সন্তানকে হত্যার কথা স্বীকার করেন। এ সময় ব্যবস্থাপক তাঁকে আটক করে থানায় খবর দেন। এদিকে আশামনির বাবা আসাদুল বলেন, ‘তিন বছর আগে আজিজুলের সঙ্গে আমার মেয়ের বিয়ে হয়। মেয়ে সন্তান প্রসবের আগে থেকেই আমার বাড়িতে থাকে। জামাই দুই মাসের ছুটিতে বাড়ি আসে। রোববার তার কর্মস্থলে চলে যাওয়ার কথা ছিল। বৃহস্পতিবার জামাই আমার বাড়ি আসে। সেখানে দুই দিন থাকার পর শনিবার বিকেলে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে শহরে মার্কেট করার জন্য বের হয়।

আসাদুল আরও বলেন, ‘রাত ১০টার দিকে জামাই আমাকে ফোন করে জানায়, রাত ৮টার দিকে স্ত্রী-সন্তানকে নারুলী যাওয়ার জন্য রিকশায় তুলে দেয়। কিছুক্ষণ পর থেকে স্ত্রীর ফোন বন্ধ পাচ্ছে। আজ সকালে মেয়ের সন্ধান চেয়ে শহরে মাইকিং করার ব্যবস্থা করি। সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে গেলে বনানীতে হোটেলে মা এবং সন্তানের লাশ উদ্ধারের খবর পাই।’ এদিকে পুলিশ হোটেলে পৌঁছে সেনাসদস্য আজিজুল হককে হেফাজতে নেওয়ার পর তিনি পুলিশের কাছে স্ত্রী-সন্তানকে হত্যার কথা স্বিকার করেন।

প্রেস রিলিজ: র‍্যাব-১১, নারায়ণগঞ্জ এবং র‍্যাব-৮, সিপিসি-১, পটুয়াখালী এর একটি যৌথ আভিযানিক দল ১৯/০৫/২০২৪ইং তারিখ নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানা এলাকা হতে ডিএমপি, ঢাকার সবুজবাগ থানার মামলা নং-১৪, তারিখ-১১/০৫/২০২৩ খ্রিঃ, ধারা-৩২৮/৩০২/৩৮০/৩৪ পেনাল কোড ১৮৬০ এর ক্লুলেস হত্যা মামলার সাথে জড়িত প্রধান আসামী মুক্তা’কে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক তদন্ত সূত্রে জানা যায় যে, মামলার বাদী একজন অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মচারী তিনি বর্তমানে তাহার বাসার সামনে একটি মুদি দোকানে দোকানদারি করেন। গত ০৮/০৫/২০২৩ খ্রিঃ তারিখ অজ্ঞাতনামা ০২ জন মহিলা উক্ত মামলার বাদী হাজী মোঃ ইউসুফ আলীর ৩য় তলার বাসা ভাড়া নেওয়ার জন্য এসে অজ্ঞাতনামা ০২ জন মহিলা বাসা পছন্দ করে ৭,০০০/-টাকায় বাসার ভাড়া সাব্যস্ত করে হাজী মোঃ ইউসুফ আলীকে অগ্রীম বাসা ভাড়া বাবদ ৫০০/-টাকা দিতে চাইলে তিনি অগ্রীম ৫০০/-টাকা গ্রহণ করে নাই। তখন অজ্ঞাতনামা মহিলাদ্বয় বলে আমরা আগামীকাল অগ্রীম ভাড়া দিয়ে বাসায় উঠব। পরদিন অজ্ঞাতনামা মহিলাদ্বয় ও একজন পুরুষ বিভিন্ন রকমের ফল নিয়ে হাজী মোঃ ইউসুফ আলীর দোকানের সামনে আসে তখন তাহাদের মধ্যে থেকে অজ্ঞাতনামা পুরুষ লোকটি তাহার সাথে কথাবার্তা বলে এবং অজ্ঞাতনামা মহিলারা তাহার বাসায় যায়। একপর্যায়ে অজ্ঞাতনামা পুরুষ লোকটিও তাহার বাসায় যায় এবং কিছুক্ষণ পর তাহার জন্য এক গ্লাস সরবত নিয়ে আসে। তিনি উক্ত সরবত খাবেনা বলে অনিহা প্রকাশ করে। পরবর্তীতে অজ্ঞাতনামা মহিলাদ্বয় ও পুরুষ লোকটি তাহার বাসা হতে দোকানের সামনে দিয়ে চলে যায়। অজ্ঞাতনামা মহিলাদ্বয় ও পুরুষ লোকটি চলে যাওয়ার কিছুক্ষণ পর তাহার বাসার কাজের মেয়ে তাহার দোকানে এসে তাকে জানায় যে, তাহার স্ত্রী বিছানায় শুয়ে কেমন যেন করছে এবং বাসার সকল মালামাল এলোমেলো হয়ে আছে। তখন তিনি দ্রুত বাসায় গিয়ে দেখে অজ্ঞাতনামা মহিলাদ্বয় ও পুরুষ লোকটি তাহার স্ত্রীকে (ভিকটিম) চেতনা নাশক খাবার খাইয়ে বাসায় থাকা নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুন্ঠিত করে নিয়েছে। তখন দ্রুত ভিকটিমকে চিকিৎকার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে গত ১০/০৫/২০২৩ খ্রিঃ তারিখ চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভিকটিম মৃত্যুবরণ করে। পরবর্তীতে উক্ত বিষয়ে হাজী মোঃ ইউসুফ আলী বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামীদের বিরুদ্ধে ডিএমপি, ঢাকার সবুজবাগ থানায় একটি নিয়মিত হত্যা মামলা দায়ের করে।

এই নৃশংস ক্লুলেস হত্যাকা-ের ঘটনার সাথে জড়িত অজ্ঞাতনামা আসামীদের’কে গ্রেফতারের লক্ষ্যে র‍্যাব-১১, নারায়ণগঞ্জ এর একটি চৌকশ গোয়েন্দা টীম যথাযথ গুরুত্বের সাথে তাদের সনাক্ত ও অবস্থান নির্ণয় পূর্বক গ্রেফতারের চেষ্টা করে। পরবর্তীতে সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে ক্লুলেস হত্যাকান্ডে জড়িত তদন্তে প্রাপ্ত প্রধান আসামী মুক্তা (৪১), স্বামী- মোঃ বশির আহম্মেদ, সাং-৮৩২ বাজিতা ফোরথ পার্ট, মাধব খালী, চৈতা পল্লী, থানা-মির্জাগঞ্জ, জেলা-পটুয়াখালী’কে র‌্যাব-১১, নারায়ণগঞ্জ এবং র‍্যাব-৮, সিপিসি-১, পটুয়াখালী এর যৌথ অভিযানে সনাক্ত ও তার অবস্থান নিশ্চিত হয়ে ১৯/০৫/২০২৪ ইং তারিখ নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানা এলাকা হতে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামী’কে পরবর্তী আইনানুগ কার্যক্রমের জন্য ডিএমপি, ঢাকা জেলার সবুজবাগ থানার নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

বগুড়ায় ধর্ষণ মামলার মূল আসামী গ্রেফতার।

প্রেস রিলিজ: গত ০১ মে ২০২৪ ইং তারিখ বগুড়া জেলার সদর থানাধীন রাজাপুর গ্রামে এক স্কুল পড়ুয়া ছাত্রী সন্ধ্যা অনুমান বিস্তারিত

নীলকমল ওসমানীয়া উবিতে শিক্ষকের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন।

দৈনিক আলো প্রতিদিন ডেস্ক: চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলার নীলকমল ওসমানীয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি এস এম আল মামুন সুমন এবং ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিস্তারিত

কোটি টাকার মাদক আইসসহ সংগীতশিল্পী গ্রেপ্তার।

দৈনিক আলো প্রতিদিন ডেস্ক: কোটি টাকার মাদক ক্রিস্টাল মেথসহ (আইস) এক সংগীতশিল্পীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রাজধানীর রামপুরা এলাকা থেকে শুক্রবার বিস্তারিত

ছড়িয়ে পড়ল আ.লীগ নেতার ৫ মিনিটের অন্ত-রঙ্গ মুহূর্তের ভিডিও

দৈনিক আলো প্রতিদিন ডেস্ক: জামালপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও বাঁশচড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল জলিলের একটা আপত্তিকর ভিডিও বিস্তারিত

কুড়িগ্রামে চোরাই গরু উদ্ধারসহ কুখ্যাত চোর “মাসুদ” গ্রেফতার।

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামে চোরাই গরু উদ্ধারসহ কুখ্যাত চোর মাসুদ’কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী থানায় আজ ১৬ মার্চ ২০২৪ বিস্তারিত
© All rights reserved © DailyAloPratidin.com